HomehistoryDevotionalছুটি কাটাতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কেরালার এই কয়েকটি ভগবতী দেবীর মন্দিরে!

ছুটি কাটাতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কেরালার এই কয়েকটি ভগবতী দেবীর মন্দিরে!

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

বলা হয় কেরালা হল ঈশ্বরের আরেকটি স্থান। কেরালার প্রত্যেকটি কোনায় আপনি ঈশ্বরের প্রতিক খুঁজে পাবেন।

ঈশ্বরের দেশে ঈশ্বর বিরাজ করবেন এটাই স্বাভাবিক।

কেরালার এমন অনেক জায়গা রয়েছে যেখানে ভগবতী মন্দির আছে।

এইসব মন্দিরে যদি আপনি সময় করে একবার ঘুরে আসতে পারেন তাহলে আপনার মন ভালো হবে।

আজ আপনাদের কেরালার এমন কয়েকটি মন্দিরের কথা বল যেখানে আপনি ভগবতী দেবীকে খুঁজে পাবেন।

চলুন তবে দেরি না করে দেখে নেওয়া যাক কি কি সেই মন্দিরের নাম।

১. অত্তুকাল ভাগবতী মন্দির :

এই মসজিদটি অবস্থিত রয়েছে তিরুবনন্তপুরম শহরের প্রাণকেন্দ্রে।

বলা হয় এই মন্দিরে নাকি বিরাজ করছেন প্রধান দেবী ভাদ্রকালী ওরফে কন্নাকি।

এই মন্দির মূলত বিখ্যাত তার পোঙ্গল উৎসবের জন্য।

উৎসবে সমস্ত মহিলারা একত্রিত হয়ে দেবীকে সন্তুষ্ট করার জন্য বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠান পালন করে থাকেন।

মন্দিরটি নিকটতম রেলস্টেশনটির নাম হল তিরুবনন্তপুরম, যেটি প্রায় মন্দির থেকে ৩ কিমি দূরে।

আর নিকটতম বিমানবন্দরটির নাম হল তিরুবনন্তপুরম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, যেটি প্রায় মন্দির থেকে ৫ কিমি দূরে।

২. শ্রী কুরুম্বা ভগবতী মন্দির, কোডুঙ্গাল্লুর :

এই মন্দিরটি কোডুঙ্গাল্লুর শহরের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত রয়েছে। এটি ত্রিশুর থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে।

শ্রী কুরুম্বা ভগবতী মন্দিরটি কেরালার অন্যান্য মন্দিরের মধ্যে সবথেকে পুরনো একটি মন্দির।

এই মন্দিরে মূলত পূজা করা হয় দেবী শ্রী কুরুম্বা’র,যার প্রধান অর্থ হল ‘কোডুঙ্গাল্লুর মা’।

মন্দিরটির নিকটতম রেলস্টেশনটির নাম হল ইরিনজালাকুদা, যেটি ২০ কিমি দূরে রয়েছে।

একই সাথে নিকটতম বিমানবন্দরটির নাম হলো কোচিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, যেটি ৩০ কিমি দূরে রয়েছে।

৩. চোট্টানিক্কারা ভাগবতী মন্দির, এরনাকুলাম :

এই মন্দিরটি কোচির সহরতলিতে অবস্থিত রয়েছে। এই মন্দিরটি নির্মিত হয় খ্রিস্টীয় দশম শতাব্দীর পূর্ববর্তীতে।

সেই সময় এই মন্দিরটি নামকরণ করা হয় চোট্টানিক্কারা ভাগবতী মন্দির নামে।

অনেকেই বিশ্বাস করেন এই মন্দিরের দেবতা নাকি মানসিক রোগ ঠিক করার জন্য বিখ্যাত।

মন্দিরটির অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎসব হল মাকাম থোজাল যা বেশ ধুমধাম করে পালন করা হয়।

এখানকার নিকটতম রেলস্টেশনটির নাম হল ত্রিপুনিথুরা রেলওয়ে স্টেশন, যেটি প্রায় ৬ কিমি দূরে রয়েছে।

অন্যদিকে নিকটতম বিমানবন্দরটির নাম হল কোচিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, যেটি প্রায় ৩৬.৪ কিমি দূরে রয়েছে।

তাই হাতে সময় থাকলে অবশ্যই ঘুরে আসুন এই কয়েকটি বিশেষ মন্দিরে।

আরো পড়ুন : বলিউডে কামব্যাক মন্দাকিনীর! তাহলে কি এবার সত্যিই ফিরছেন ৮০’ দশকের স্বপ্নসুন্দরী ?

- Advertisement -

Must Read

“বেকড মিহিদানা”, এবারে বাড়িতেই বসে তৈরি করে নিন দোকানের মত এই মিষ্টির স্বাদ!!

খাঁটি বাঙালি মানেই মিষ্টি তার প্রিয় খাদ্য। মাছ থেকে মাংস যত পঞ্চব্যঞ্জন রান্না করে দেওয়া হোক না কেন শেষপাতে বাগানের মিষ্টি চাই। সামনে আসতে...