Advertisement ggg
HomeEntertainmentজানেন কি কেন ব্যান করা হয়েছিল এই দশটি সিনেমা ?

জানেন কি কেন ব্যান করা হয়েছিল এই দশটি সিনেমা ?

পৃথিবীতে এমন কেউ নেই যে সিনেমা দেখতে ভালোবাসে না। অনেক ধরনেরই সিনেমার নাম আমরা জানি। তবে সব সিনেমায় সবার দেখা উচিত না। শুধুমাত্র এই কারণে ব্যান করে দেওয়া হয়েছে এই ধরনের অনেক সিনেমা। আজকে আপনারা সেই ধরনের দশটি সিনেমার নাম জেনে  নিন-

১| ক্লক ওয়ার্ক অরেঞ্জ :

১৯৭১ সালে গ্রেট ব্রিটেনে রিলিজ হয় এই সিনেমাটি। জানা যায় , প্রায় ২৭ বছর ধরে এই সিনেমাটি দেখা নিষিদ্ধ ছিল। বিখ্যাত পরিচালক স্ট্যানলি কুবরিক পরিচালিত এই সিনেমাটিতে প্রচুর হিংসা ও পাশবিক ধর্ষণের দৃশ্য দেখিয়েছিলেন। তবে গোটা বিশ্বে এই সিনেমাটি ব্যাপক সাফল্যতা পেয়েছিল।

২| দ্য বার্থ অফ এ নেশন :

১৯১৫ সালে তৈরি হওয়া এই সাইলেন্ট ছবিটি পৃথিবীর সেই প্রথম সিনেমা যার মধ্যে সিক্যুয়েল ছিল। এটি ব্যান করার অন্যতম কারণ হলো এখানে কৃষ্ণাঙ্গদের বিরোধিতা দেখানো হয়েছিল। পরে অবশ্য এই সিনেমার জন্য ক্ষমা চান পরিচালক।

৩| দ্য টিন ড্রাম :

১৯৬৯ সালের এই সিনেমাটিতে দেখানো হয় ১১ বছরের ছেলের সঙ্গে ১৬ বছরের একটি মেয়ে যৌন সঙ্গমে লিপ্ত। যেহেতু অনেকেরই বক্তব্য এটি একটি চাইল্ড পর্নোগ্রাফি তাই কানাডা ও ফিলাডেলফিয়া সিনেমাটি ব্যান করে দেওয়া হয়। তবে জানা যায় , সিনেমাটি নাকি বিদেশ থেকে অস্কার পেয়েছিল।

৪| থ্রি হান্ড্রেড :

২০০৬ সালে রিলিজ হওয়া এই সিনেমাটি জনপ্রিয়তার শিখর ছুঁয়ে গিয়েছিল। তবে এই সিনেমায় আরব ও ইরানের বাসিন্দাদের ছোট করা হওয়ায় এটি ওই দুই জায়গায় সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়।

৫| অল কোয়াইট অন দ্য ওয়েস্টার্ন ফ্রন্ট :

১৯৩০ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবিতে হিটলার ও নাৎসি বাহিনী অত্যাচারকে তুলে ধরা হওয়ায় অস্ট্রেলিয়া ও জার্মানিতে দীর্ঘ বছর নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এমনকি জার্মানির কেউ এই সিনেমাটি দেখলে তাঁকে মারাত্মক শাস্তি দেওয়া হত।

৬| সালো / হানড্রেড টোয়েন্টি ডেজ অফ সোডোম :

ইরান , সিঙ্গাপুরসহ বেশ কিছু জায়গায় ১৯৭৫-র এই সিনেমাটি সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। এর পিছনে কারণ হল এই সিনেমায় শিশুদের অপহরণ ও ধর্ষণের মতো খারাপ দৃশ্য দেখানো হয়েছিল।

৭| দ্য সিম্পসন মুভি :

২০০৭ সালে তৈরি হওয়া এই ছবিটি এটি সবথেকে জনপ্রিয় একটি কার্টুন মুভি। এই সিনেমাটি কে বার্মা সরকার নিষিদ্ধ করে দেয় কারণ সিম্পসনের গায়ের রঙ হলুদ আর বার্মায় হলুদ রং নিষিদ্ধ।

৮| ব্যাক টু দ্য ফিউচার :

যেহেতু এই সিনেমায় সম্পূর্ণ ভবিষ্যতের জিনিস দেখানো হয়েছে তাই এটি চিনে ব্যান করে দেওয়া হয়। চিনা সংস্কৃতি অনুযায়ী তাঁদের নাকি ভবিষ্যৎ দেখা বারণ। তাছাড়া এটা নাকি অনেক কুসংস্কার ও আছে।

৯| লাস্ট ট্যাঙ্গ ইন প্যারিস :

এই সিনেমাটি আবার ইতালি ও স্পেনে তে করে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। যেহেতু এখানে নায়ক-নায়িকার শরীরে মাখন লাগাচ্ছিলেন অর্থাৎ খাবার অপচয় করছিলেন তাই ইতালি ও স্পেনে এটি নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়।

১০| ক্যানিবাল হলোকাস্ট :

১৯৮০ সালে এই সিনেমাটি পুরোপুরি ফেক ডকুমেন্টেরির উপর তৈরি করা হয়েছিল। এই ক্যানিব্যালিজম সিনেমা হলে অনেক মানুষই অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় প্রায় ৪০টি দেশে এটি নিষিদ্ধ করা হয়।

Image Source : Wikipedia

আরোপড়ুন : ইউটিউব দেখে গর্ভপাত! ভয়ঙ্কর পরিণতি

RELATED ARTICLES

জেনেনিন কোনো রকম কেমিক্যাল ছাড়া ঘন চাপ দাড়ি পাওয়ার...

চুল বা দাড়ি যদি কোনো কারণে পাতলা হয়ে যায় বা উঠে যায় বা যদি...

স্কুলে ‘সেক্স এডুকেশন’এর অভাব! ‘বেশ্যালয় কি?’ প্রশ্ন লারা দত্ত-...

জিজ্ঞাস্য প্রচুর লারা দত্তর কন্যার সায়রার। ছোট্ট সায়রা চার বছর বয়সেই ‘ডিভোর্স’ শব্দের মানে...

রাত্রে পার্টি তাই সকাল থেকে মেক আপ করতে ব্যস্ত...

রাত্রে পার্টি তাই সকাল থেকে মেক আপ করতে ব্যস্ত এই ছোট্ট মেয়েটি। পার্টি বলে...

Must Read

ভিকির প্রেমেই মজেছে ক্যাট ! জল কতদূর গড়াচ্ছে তাঁদের...

বলি টাউনে পা রাখার সাথে সাথেই সলমনের প্রেমে পাগল হয়ে গেলেও বেশিদিন সেই সম্পর্কে...

প্রসেনজিতের ৫৮ তম জন্মদিনে জেনে নিন অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি...

দু'দশক ধরে টলিউড ইন্ডাস্ট্রির অতি জনপ্রিয় অভিনেতা হলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর অভিনয় দক্ষতায় তিনি...

ওয়েব সিরিজ দেখে জালিয়াতি ! গ্রেফতার পাঁচ যুবকের একটি...

ওয়েব সিরিজ দেখে সুন্দর করে অপরাধের ছক কষে রাতারাতি সাফল্য পেয়ে আয়েশি জীবন যাপন...