Homecricketওপেনারদ্বয় বাদে গোটা দলের ব্যর্থতা, ধোনির চেন্নাইয়ের কাছে আইপিএল ফাইনালে হার কেকেআরের

ওপেনারদ্বয় বাদে গোটা দলের ব্যর্থতা, ধোনির চেন্নাইয়ের কাছে আইপিএল ফাইনালে হার কেকেআরের



সময় যেন পিছিয়ে গিয়েছিল ৯ বছর। ঠিক যেন ২০১২ সালের আইপিএলের ফাইনালের পুনর্মঞ্চায়ন। আবারও চেন্নাইয়ের শুরুতে ব্যাটিং, ফাইনালে কলকাতার দলে উপস্থিত সুনীল নারায়ন ও সাকিব আল হাসান। কিন্তু ইতিহাসের সব পরিসংখ্যান ও সম্ভাবনাকে নাকচ করে নিজেদের চতুর্থ আইপিএল শিরোপা জিতল চেন্নাই সুপার কিংস।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে আজ বিশাল বড় রান করতে না পারলেও কে এল রাহুলকে টপকে অরেঞ্জ ক্যাপ দখল করে নেন চেন্নাইয়ের তরুণ ওপেনার ঋতুরাজ গায়কোয়াড। তিনি ফিরলে ফ্যাফ দু-প্লেসিসের ৫৯ বলে ৮৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস এবং রবিন উথাপ্পা ও মঈন আলীর ক্যামিওতে ভর করে কলকাতার সামনে ১৯৩ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায় ধোনির চেন্নাই। এরপর কেকেআরের হয়ে শুরুটা দুর্দান্ত করেছিল শুভমন গিল-ভেঙ্কটেশ আইয়ারের ওপেনিং জুটি। তাদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে একসময় কেকেআর ছিল বিনা উইকেটে ৯১-এ। দুজনেই অর্ধশতরান করে একসময় জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন। কিন্তু ওপেনার দুজন ফিরতেই ধস নামে কেকেআরের মিডল অর্ডারে। শার্দুল ঠাকুরের ৩ উইকেটের সাথে রবীন্দ্র জাদেজা ও জশ হেজলউডের ২ উইকেটে কলকাতার ব্যাটিং অর্ডার ধসিয়ে দেয়। শেষদিকে শিবম মাভি এবং লকি ফার্গুসন কিছুটা লড়াই চালায়, কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছিল। শেষপর্যন্ত ২৭ রানের জয় দিয়ে আরও একবার শিরোপা হাতে তুলল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।

MS Dhoni’s CSK won their 4th IPL crown

 আগে যে ২ বার শিরোপা জিতেছিল কলকাতা সেই দুবারই ১৯০+ রান তাড়া করেছিল তারা। এদিনও তাই ১৯৩ রানের লক্ষ্যে করতে হত বিশেষ কিছুই। বিশাল সেই রান চেসে জশ হেজলউডের করা দ্বিতীয় ওভারেই উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়েও মহেন্দ্র সিং ধোনি তালুবন্দি করতে না পারায় জীবন পেয়ে যান ভেঙ্কটেশ আইয়ার। এরপর একবার লং অনে ক্যাচ দিয়েও বল স্পাইডার ক্যামে লাগায় জীবন পেয়েছিলেন শুভমান গিলও। এরপর অনেকক্ষণ দুর্দান্ত ব্যাটিং করার পর তাদের ৯১ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন শার্দুল ঠাকুর। জাদেজার ক্যাচে ৩২ বলে ৫০ রানে আইয়ারকে ফেরানোর পর কলকাতার দারুণ শুরু ভেস্তে দিয়ে ঐ ওভারের শেষ বলে রানের খাতা খোলার আগে নিতিশ রানাকেও ফেরান শার্দুল। পরের ওভারে হেজলউডের বল মাঠাছাড়া করতে গিয়ে জাদেজার দুর্দান্ত ক্যাচের শিকার হয়ে ফিরে যান সুনিল নারাইনও। পরের ওভারে ৪০ বলে নিজের ফিফটি পূর্ণ করলেও বিপদ আরও বাড়িয়ে দীপক চাহারের বলে অদ্ভুত এক স্কুপ খেলতে গিয়ে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে ৪৩ বলে ৫১ রান করে ফেরেন গিল। তারপর কেকেআরের আর কোনও ব্যাটারই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেননি। টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়ক হিসেবে নিজের ৩০০ তম ম্যাচটিকে খুব ভালোভাবেই স্মরণীয় করে রাখেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।



RELATED ARTICLES

কোহলিদের নিয়ে হতাশা কাটেনি সৌরভের, বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে জানালেন মহারাজ

২০২১ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার পরেও বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে বরাবর কোহলিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন...

কেন গিলের বদলে ওপেন করলেন পূজারা, জানুন বিস্তারিত

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে চালকের আসনে ভারত। এজাজ প্যাটেলের ১০ উইকেট পাওয়ার দিনই ভারতীয়...

মাঠের মধ্যে আশ্চর্য কান্ড করে বসলেন অশ্বিন, হয়ে গেলেন...

ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে চালকের আসনে ভারত। নিউজিল্যান্ডকে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৬২...

কোহলিদের নিয়ে হতাশা কাটেনি সৌরভের, বিশ্বকাপ প্রসঙ্গে জানালেন মহারাজ

২০২১ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার পরেও বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে বরাবর কোহলিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন...

কেন গিলের বদলে ওপেন করলেন পূজারা, জানুন বিস্তারিত

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে চালকের আসনে ভারত। এজাজ প্যাটেলের ১০ উইকেট পাওয়ার দিনই ভারতীয়...

মাঠের মধ্যে আশ্চর্য কান্ড করে বসলেন অশ্বিন, হয়ে গেলেন...

ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে চালকের আসনে ভারত। নিউজিল্যান্ডকে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৬২...