Advertisement ggg
HomehistoryDevotionalবিজ্ঞানীরা (Scientist) যখন কৈলাসের ভিতরে প্রবেশ করে তখন এই জিনিস দেখেন তাঁরা,...

বিজ্ঞানীরা (Scientist) যখন কৈলাসের ভিতরে প্রবেশ করে তখন এই জিনিস দেখেন তাঁরা, যা শুনলে চমকে যাবেন আপনি

প্রথমবার যখন বিজ্ঞানীরা (Scientist) কৈলাসের ভিতরে প্রবেশ করে তখন এই জিনিসগুলো দেখেন তাঁরা।

সমগ্র পৃথিবী (Earth) জুড়ে এমন অনেক অবাক করা জিনিস রয়েছে যেগুলো সম্পর্কে আমরা জানি না।

১৮৭৬ একটি বই ছাপানো হয়েছিল যা লিখেছিলেন স্বয়ং Emma Hendrick।

তাঁর সেই ছাপানো বইটি থেকে জানা গিয়েছে, কৈলাসের নিচে নাকি একটি গুহা রয়েছে।

যেখানে বসবাস করেন কিছু অদ্ভুত লোকজন যাঁরা চোখের নিমেষেই গায়েব হয়ে যেতে পারেন।

এই ঘটনাগুলি প্রকাশ্যে আসামাত্রই অনেক বিজ্ঞানীরা (Scientist) চেষ্টা করেন সেই জায়গাটিতে যাওয়ার।

কিন্তু এক সময় এক এমন ঘটনা ঘটে যার পরে ওই জায়গাটিকে সিল (Seal) করে দিতে বাধ্য হয়।

আজকে আপনাদের সামনে সেই রহস্যময় গুহাটির (Cave) কথা তুলে ধরব। তাই অনুরোধ রইল শেষ পর্যন্ত পড়ার।

scientists-see-these-things-when-they-enter-kailash-which-will-surprise-you

আজ থেকে বহু যুগ আগে অর্থাৎ প্রাচীন (Ancient) সময় এমন অনেক জিনিসই আবিষ্কৃত হয়েছিল যা বর্তমানে (Present) বিলুপ্ত (Extinct) হয়ে গিয়েছে।

তবে এটা অস্বীকার করার কোন জায়গায় নেই যে সেই সময়ে বিজ্ঞান (Science) অনেক বেশি উন্নত ছিল।

ঠিক সেরকমই একটি স্থাপত্য হল কৈলাস মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) ঔরঙ্গাবাদে (Aurabgabad) অবস্থিত রয়েছে।

যা ইতিমধ্যেই সমস্ত বিজ্ঞানীদেরকে (Scientist) হতবাক করে দিয়েছে।

মন্দিরটি (Temple) কবে স্থাপিত হয়েছিল তা নিয়ে  ভিন্ন মতামত রয়েছে বিজ্ঞানীদের (Scientist) মধ্যে।

কারোর মতে এটি ১৯০০ বছরের পুরনো তো কারো মতে এটি ৬০০০ বছরের পুরোনো।

সবচেয়ে আশ্চর্যজনক বিষয় হল এই মন্দিরটিকে নির্মাণ করার জন্য কোন পাথর অথবা ইটের ব্যবহার করা হয়নি।

একটি বিশাল আকৃতির পাথরকে কেটে এই মন্দিরটিকে তৈরি করা হয়েছিল।

বিজ্ঞানীদের (Scientist) মতে এই মন্দিরটিকে তৈরি করতে কমপক্ষে প্রায় লেগে গিয়েছে ১৮ বছর।

বর্তমানে বিজ্ঞান (Science) যতই এগিয়ে যাক যতই নতুন যন্ত্রপাতি (Instruments) আসুক,

না কেন এই মন্দিরটিকে নতুন করে নির্মাণ করা প্রায় অসম্ভব।

আরো একটি আশ্চর্যজনক বিষয় হল মন্দিরটিকে নিচের দিক থেকে নয় বরং অপর দিক থেকেই ক্ষণন করে তৈরি করা হয়েছিল।

যার ফলে বর্তমানে এই মন্দিরকে নতুন করে নির্মাণ করা প্রায় অসম্ভব।

অনেকের মতে এই মন্দিরটিকে তৈরি করা হয়েছিল ব্রহ্মাস্ত্রের (Brahmastra) সাহায্য নিয়ে।

Emma Hendrick তাঁর লেখা ওই বইটির মধ্যে উল্লেখ করেছেন কিছু রহস্যময় মানুষের কথা।

এই মন্দিরটিতে অবস্থিত রয়েছে বেশ কয়েকটি গুহা যা আগে থেকে কখনোই বন্ধ ছিল না।

লেখিকা জানিয়েছিলেন, তাঁর সাথে এক ব্রিটিশ ব্যক্তির দেখা হয়েছিল যিনি ওই গুহাটিতে প্রবেশ করেছিলেন।

যেখানে তিনি ৭জন ব্যক্তিকে দেখতে পান যাঁদের মধ্যে থেকে একজন প্রায় অদৃশ্যই ছিল।

দেখে মনে হচ্ছিল যেন সম্পূর্ণভাবে হাওয়ার মধ্যেই মিশে যাচ্ছিলেন তিনি।

এরপরেই নানান গবেষকরা (Researchers) এবং বিজ্ঞানীরা (Scientist) সেই জায়গাতে যাওয়া শুরু করেন।

তবে এরপরই সেই গুহা গুলিকে সম্পূর্ণভাবে সিল করে দেওয়া হয়।

কিন্তু কেন সিল করে দেওয়া হয়েছিল এই গুহাগুলির (Cave) ভিতরে।

পৌরাণিক কথা অনুযায়ী জানা গিয়েছে, একসময় এক রাজা প্রচন্ড অসুস্থ হয়ে পড়েন,

এইসময় রাজার স্ত্রীর মহাদেবকে (Shiva) শপথ করে বলেন যদি,

তাঁর স্বামী সুস্থ হয়ে যান তাহলে এক অন্যরকমের মন্দির কে নির্মাণ করাবেন।

যা এর আগে কোনও ব্যক্তি দেখেননি, আর একইসাথে যতদিন না মন্দির নির্মাণ হচ্ছে ততদিন তিনি না খেয়ে উপোস করে থাকবে।

সর্বশেষে ভগবান শিবের (Shiva) আশীর্বাদের রাজার প্রাণ রক্ষা পায়। এরপরই তিনি ঠিক করেন মন্দিরটি নির্মাণ করার।

কিন্তু এবার প্রশ্ন হল এই বিশাল আকৃতির মন্দির তৈরি করতে তো অনেক সময় লাগবে।

তাহলে রানি কী করে এতদিন না খেয়ে উপোস করে থাকবেন।

তাই এই সমস্যার সমাধান করতে মহাদেব তাঁদেরকে এমন একটি অস্ত্র প্রদান করেন,

যা দিয়ে খুব তাড়াতাড়ি মন্দিরকে (Temple) নির্মাণ করা সম্ভব হবে।

অনেকে মনে করেন এই কৈলাস মন্দিরের নীচে এমন একটি মন্দির রয়েছে সেখানে নাকি এই অস্ত্রকে রাখা হয়েছে।

আর এই অস্ত্র রক্ষা করতে সেখানে রয়েছেন ৭ জন দেব্য আত্মা, তাঁরা যে কারা তা বলা অসম্ভব।

ঘটনাটি অবাক করে দিলেও কিন্তু বাস্তবে কিন্তু এমনি ঘটনা ঘটে চলেছে নিত্য প্রতিদিন।

এই ছিল আজকের অজানা কিছু তথ্য সেই কৈলাস মন্দিরের (Temple) সম্পর্কে।

আশা করছি আপনাদের প্রত্যেকের এই আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে,

যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই লাইক এবং শেয়ার করবেন।

আরো পড়ুন : জেনে নিন জিভে জল আনা এক সুস্বাদু মিষ্টি(Sweet) গোলাপ জাম -এর রেসিপি

RELATED ARTICLES

মর্ত্যে মা লক্ষ্মী -র(Maa Laxmi) বিভিন্ন অবতারের পুরান কাহিনীগুলি...

দেবী পার্বতীর কন্যা মা লক্ষ্মী -কে(Maa Laxmi) নিয়ে পুরাণে একাধিক কাহিনি বর্ণিত আছে। তিনি...

প্রশান্ত মহাসাগরে হারিয়ে গিয়ে টানা ৪৩৮ দিনের লড়াই! কাহিনী...

বিশ্বের ৫ টি সমুদ্রের মধ্যে বৃহত্তম সমুদ্র প্রশান্ত মহাসাগর (Pacific Ocean)। এর মোট বিস্তৃতি...

কলকাতার পুতুল বাড়ি রহস্য

ভূত প্রেত (Ghost) অনেকে বিশ্বাস না করলেও তাদের নিয়ে গল্প শুনতে অনেকেই ভালোবাসে। আর...

Must Read

Khushi Shaikh Age, Height, Weight,  Partner, Biography, Family details...

Khushi Shaikh Biography : Khushi Shaikh is a newcomer famous TikTok and social media star....

আপনার কী কাঁধে (shoulders) এবং পিঠে (back) অসংখ্য জনক...

অনেক মানুষের কাঁধে (shoulders) এবং পিঠের (back) কাছে অসংখ্য জনক ডার্ক স্পর্টস (dark spots)...

চাকরি বদলাচ্ছেন? একইসাথে কিন্তু বদলে ফেলতে হবে প্রভিডেন্ট ফান্ডের...

আপনি কী খুব শীঘ্রই আপনার চাকরিটি বদলে (job transfer) ফেলতে চলেছেন? তাহলে কিন্তু আপনাকে...