HomeLife styleএবার বন্যা নিয়ন্ত্রণ করবে নয়া এই প্রযুক্তি ! আশাবাদী বীরভূম-মুর্শিদাবাদের বাসিন্দারা

এবার বন্যা নিয়ন্ত্রণ করবে নয়া এই প্রযুক্তি ! আশাবাদী বীরভূম-মুর্শিদাবাদের বাসিন্দারা

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

সম্প্রতি এক নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নিয়ন্ত্রাধীন ঝাড়খন্ডে অবস্থিত ম্যাসেঞ্জার জলাধারে এবার রিমোট সেন্সিং-র মাধ্যমে সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রণ করা হবে। কখন বৃষ্টি হবে , জলাধারের গেট কতটা খোলা হবে এবং কতটা পরিমাণ জল ছাড়া হবে ইত্যাদি সব কিছু বীরভূমের সিউড়ি সেচ দফতর থেকে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে জানানো হবে। এই ধরনের উন্নত প্রযুক্তি চালু করার পর সকলেই আশা করছেন ভবিষ্যতে বৃষ্টির ফলে হওয়া বন্যা বা অন্যান্য সমস্যা থেকে বাঁচা যাবে বা সকলকে নিরাপত্তা দেওয়া যাবে। সকল গ্রামবাসীদের জন্য অবশ্যই এটি একটি সুখবর।

এই ম্যাসেঞ্জার জলাধারটি ঝাড়খণ্ডের দুমকা জেলায় অবস্থিত। এই জলাধারটি অপর এক নাম হলো কানাডা ড্যাম। ১৯৫০ সালে বিহার ও পশ্চিমবঙ্গে বন্যা যাতে না হয় তাই কানাডা দেশকে আর্থিক সাহায্য করে ময়ূরাক্ষী নদীর উপর ম্যাসেঞ্জার জলাধারটি গড়ে তোলা হয়েছিল। ১৯৫৫ সালে বিহারের সরকার ও পশ্চিমবঙ্গের সরকারের মধ্যে হওয়া চুক্তিতে ঠিক হয় এই জলাধারটি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করবে বাংলার সরকার। আবার ঝাড়খণ্ড সরকারকে ফসল চাষের জন্য এই জলাধারটি ক্যানেল থেকে জল দেওয়া হয়। ম্যাসেঞ্জার জলাধারটিতে মোট ৩২ টি গেট রয়েছে। যার মধ্যে ২১ টি স্পিল গেট , ৩টি লো লেভেল গেট , ৩ টি হাই লেভেল গেট , ২ টি নরম্যাল গেট এবং ৩ টি ঝাড়খন্ড সরকারকে চাষবাসে জল দিয়ে সাহায্য করার জন্য গেট। দীর্ঘদিন ধরে কর্মচারীরা চাবি ঘুরিয়ে খোলা বা বন্ধ করে এই গেট গুলি চালাত। পুরো কাজটাই ম্যানুয়াল ভাবে করা হতো। তবে এখন সবটাই যন্ত্রের দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা হবে। নতুন এই প্রযুক্তির নাম স্কাডা।

সূত্রে খবর অনুযায়ী , স্যাটেলাইট ও ম্যাসেঞ্জার জলাধারের সাথে কম্পিউটার কানেক্ট থাকছে। নতুন চালু করা এই প্রযুক্তির মাধ্যমে কতটা বৃষ্টি হতে পারে , নদীর জল কতটা বাড়তে পারে , কতটা পরিমাণ জল ছাড়তে হবে ইত্যাদি সবকিছু নিয়ন্ত্রিত হবে। একমাত্র বীরভূম সেচ দপ্তর থেকেই গেট গুলি তোলা ও বন্ধ করা যাবে।

আবার সিউড়ি সেচ দপ্তরের কন্ট্রোল রুমের ওয়ালে জলাধারে কি হচ্ছে না হচ্ছে সমস্ত কিছুর লাইভ দেখা যাবে। আবহাওয়ার পরিস্থিতি দেখে তার সাথে জলের উচ্চতা দেখে জলাধার থেকে জল ছাড়া হবে। এর মধ্যেই কাজটি ট্রায়াল শুরু করা হয়ে গিয়েছে। সকলেই আশা রেখেছেন এর ফলে বীরভূম , মুর্শিদাবাদসহ বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টির সময় এর মাধ্যমে বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

Image Source : Wikipedia

আরোপড়ুন : KBC-এর ময়দানে এবার অলিম্পিক্স জয়ী নীরজ চোপড়া ও পি আর শ্রীজেশ

আরোপড়ুন : মাটির নীচে থেকে উঠে এলো একটি অলৌকিক মন্দির!! জানেন এটা কীসের মন্দির ?

- Advertisement -

Must Read

আঙুলের সংকেতে কিভাবে বলবেন ‘কিং খান’এর নাম?

আঙুলের সাহায্যে সাংকেতিক ভাষায় কীভাবে বলবেন বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খানের নাম?‌ এবার শিখে নিন আপনিও।  শাহরুখের পাশাপাশি অন্যান্য শব্দ ও নাম সম্প্রতি যোগ করা হয়েছে।...